শীতে হঠাৎ শ্বাসকষ্ট

শীত পড়তে শুরু করেছে। পরিবেশেও বেড়েছে ধুলাবালির পরিমাণ। এ সময় আবহাওয়াও শুষ্ক হয়ে পড়ে। সব মিলিয়ে শীতকালটা হাঁপানি রোগীদের জন্য বিপজ্জনক। এ সময় তাদের শ্বাসকষ্ট বা হাঁপানির টান প্রায়ই বেড়ে যেতে পারে। আকস্মিক হাঁপানি রোগীর শ্বাসকষ্ট অতিরিক্ত বেড়ে গেলে তাকে বলা হয় সিভিয়ার অ্যাকিউট অ্যাজমা। এ সময় অনেকেই হাসপাতালে ভর্তি হতে বাধ্য হয়। হঠাৎ শ্বাসকষ্ট বেড়ে গেলে প্রথমে কী করবেন?

প্রথমেই রোগীকে বিছানায় বা সোফায় সোজা করে বসিয়ে দিন। আশ্বস্ত করুন ও আতঙ্কিত হতে নিষেধ করুন।

হাঁপানি রোগীর বাড়িতে উপশমকারী সালবিউটামল বা সালবিউটামল-ইপরাট্রোপিয়ামযুক্ত ইনহেলার থাকে। স্পেসারের সাহায্যে ধীরে ধীরে পাঁচটি চাপ দিন। স্পেসার না থাকলে কাগজের ঠোঙার সাহায্য নিন।

স্পেসারের মধ্যে একবার ওষুধটি চাপ দিয়ে ফেলার পর তা থেকে পাঁচবার শ্বাস নিতে হবে। বড় বড় ও জোরে জোরে শ্বাস নিয়ে ওষুধটি বুকের ভেতর টেনে নিতে হবে, খেয়ে ফেললে চলবে না। বয়স্ক ও শিশুদের ভালো করে বুঝিয়ে বলে সাহায্য করুন।

কিছুক্ষণ বিশ্রাম নিতে বলুন। তারপরও শ্বাসকষ্ট না কমলে আবার পাঁচটি চাপ নিন। এভাবে পাঁচবার নিতে পারেন। মানে মোট ২৫ চাপ।

কারও বাড়িতে বা নিকটে নেবুলাইজার যন্ত্র থাকলে ভালো। নরমাল স্যালাইনের সঙ্গে সালবিউটামল দ্রবণ মিলিয়ে কয়েক মিনিট নেবুলাইজার যন্ত্রের সাহায্যে শ্বাস নিন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *