সুস্থ কাঁধের জন্য ব্যায়াম

শরীর সুস্থ রাখা যে কত কঠিন তা ভুক্তভোগীরাই ভালো জানেন। আর অসুস্থতা এমনই একটা বিষয় যা কখনো বলে-কয়ে আসে না। হঠাৎ করেই যে কেউ যেকোনো রকম অসুস্থতায় পড়তে পারেন। বাসে উঠেছেন। বসার জায়গা নেই। হাতল ধরে দাঁড়াবেন এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু হাতল ধরতে যেই না হাত ওঠালেন অমনি কাঁধে টান লাগল। শুরু হয়ে গেল যন্ত্রণা। অনেক সময় ভারী ব্যাগ নিয়ে দীর্ঘক্ষণ হাঁটলে, ঘুমানোর ভঙ্গি ভুল হলে কাঁধে ব্যথা হতে পারে। এমনকি কখনো কখনো পেছনের পকেট থেকে মানিব্যাগ বের করতে গিয়ে ঘটতে পারে এমন ঘটনা। এ ছাড়া বুকের পেশি সংকুচিত হয়ে বা পিঠের ওপরের অংশের পেশি দুর্বল হয়েও কাঁধের ব্যথা হতে পারে। অথচ একটু সাবধান হলে এসব অঘটন থেকে নিজেকে সহজেই রক্ষা করা যায়। বয়স চল্লিশ হয়ে গেলে এমন সব ঘটনা ঘটার আশঙ্কা থাকে বেশি।

পেক মাইনর স্ট্রেচ

বুকের ওপরের পেশি পেকটোরাসিল মাইনরকে দীর্ঘায়িত করতে এ ব্যায়ামটি বেশ কার্যকরী। দুই হাতের তালু পেছনের দিকে কোমরের কাছে নিয়ে দুই হাতের আঙুলকে একে অপরের সঙ্গে আটকে দিতে হবে। এবার দুই হাতে নিচের দিকে চাপ দিতে হবে, যেন পেছনের দিকে হাত টানটান হয়। ২০ থেকে ৩০ সেকেন্ড চাপ দিয়ে ছেড়ে দিন। এভাবে তিনবার অনুশীলন করতে হবে।

টাওয়েল স্ট্রেচ

কাঁধের অস্থির রেঞ্জ অব মোশন বাড়াতে এ ব্যায়ামটি বেশ উপযোগী। একটি হাত কনুই থেকে ভাঁজ করে পেছনে নিয়ে পেছনে থাকা তোয়ালের নিচের অংশে ধরতে হবে। অন্য হাত কাঁধের ওপর দিয়ে বাঁকা করে নিয়ে তোয়ালের ওপরের অংশ ধরতে হবে। এবার ওপরের হাতে তোয়ালে ওপরের দিকে টানতে হবে। এতে নিচের হাত ওপরের দিকে উঠবে। এভাবে ২০ থেকে ৩০ সেকেন্ড ধরে রাখতে হবে। এতে ইনফ্রাস্পিনেটাস পেশিও দীর্ঘায়িত হবে। এবার হাতের অবস্থান পাল্টে নিয়ে ওপরের হাত নিচে এবং নিচের হাত ওপরে আনতে হবে। তিনবার করুন। প্রতিদিনই এই স্ট্রেচগুলো করলে ভালো ফল পাওয়া যায়। সম্ভব হলে দিনে দুইবার করে এ অনুশীলনটি করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *